এইচএসসি – জীব বিজ্ঞান – ১ম পত্র – অধ্যায় ০৯ – উদ্ভিদ শরীরতত্ত্ব – (অনুচ্ছেদ – প্রস্বেদন)

এইচএসসি – জীব বিজ্ঞান – ১ম পত্র – অধ্যায় ০৯ – উদ্ভিদ শরীরতত্ত্ব – (অনুচ্ছেদ – প্রস্বেদন)

প্রতিটি সজীব উদ্ভিদের দেহাভ্যন্তরে বহুবিধ শারীরতাত্ত্বিক ক্রিয়া-বিক্রিয়া প্রতিনিয়ত চলতে থাকে।একাধিক ক্রিয়া-বিক্রিয়া মিলিতভাবে এক একটি শারীরতাত্ত্বিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।উদ্ভিদ জীবনে গুরুত্ত্বপূর্ণ কতিপয় শারীরতাত্ত্বিক প্রক্রিয়া হলো খনিজ লবন পরিশোষণ,রস উত্তোলন,সালোকসংশ্লেষণ,শ্বস্ন,প্রস্বেদন প্রভৃতি।বিজ্ঞানী স্টিফেন হ্যালেস ১৭২৭ খ্রিস্টাব্দে আবিষ্কার করেন যে উদ্ভিদ বায়ু থেকে কিছু খাদ্য গ্রহণ করে এবং সূর্যালোক হয়ত এতে অংশগ্রহণ করে।এজন্যই তাকে উদ্ভিদ শারীরতত্ত্বের জনক বলা হয়।বিভিন্ন পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে,উদ্ভিদের জন্য কার্বন ,হাইড্রোজেন ,অক্সিজেন,নাইট্রোজেন,ফসফরাস,পটাশিয়াম,ক্যালসিয়াম,ম্যাগনেসিয়াম,সালফার,লৌহ,ম্যাঙ্গগানিজ,তামা,দস্তা,মলবডেনাম,বোরন,সোডিয়াম ও ক্লোরিন এই ১৭ টি উপাদান অত্যাবশ্যকীয় উপাদান।

যে শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়ায় উদ্ভিদ তার মূল দ্বারা শোষিত জলের অপ্রয়োজনীয় ও অতিরিক্ত অংশ লেন্টিসেল, কিউটিকল, পত্ররন্ধ্র ইত্যাদি বায়বীয় অংশের মাধ্যমে দেহ থেকে বাস্পের আকারে বের করে দেয়, প্রোটোপ্লাজম নিয়ন্ত্রিত ওই শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়াকে প্রস্বেদন বলে।প্রস্বেদন প্রধানত পত্ররন্ধ্রের মাধ্যমে হয়, এছাড়া কাণ্ড ও পাতার কিউটিক্ল এবং কাণ্ডের ত্বকে অবস্থিত লেন্টিসেল নামক এক বিশেষ ধরনের অঙ্গের মাধ্যমেও অল্প পরিমাণ প্রস্বেদন হয়। প্রস্বেদনের স্থানের ভিত্তিতে প্রস্বেদন তিন প্রকার যথা- ১) পত্ররন্ধ্রীয় প্রস্বেদন, ২) ত্বকীয় বা কিউটিকুলার প্রস্বেদন এবং ৩) লেন্টিকুলার প্রস্বেদন।

   
   

0 responses on "এইচএসসি - জীব বিজ্ঞান - ১ম পত্র - অধ্যায় ০৯ - উদ্ভিদ শরীরতত্ত্ব - (অনুচ্ছেদ - প্রস্বেদন)"

Leave a Message

Certificate Code

সবশেষ ৫টি রিভিউ

top
© eShikhon.com 2015-2020. All Right Reserved