বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (BUET) ভর্তি পরীক্ষায় কোন বিষয়ে কতটি সিট/আসন সংখ্যা, সময় সুচি ও মানবন্টন দেখে নিন এখান থেকে সকল ইউনিট

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (BUET) ভর্তি পরীক্ষায় কোন বিষয়ে কতটি সিট/আসন সংখ্যা, সময় সুচি ও মানবন্টন দেখে নিন এখান থেকে সকল ইউনিট

আবেদনের জন্য যোগ্যতাঃ
[ক] প্রার্থীদেরকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে গ্রেড পদ্ধতিতে ৫.০০ এর স্কেলে কমপক্ষে জিপিএ ৪.০০ পেয়ে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট/দাখিল/সমমানের পরীক্ষায় পাশ অথবা বিদেশী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড পেয়ে পাশ হতে হবে৷
প্রার্থীদেরকে বাংলাদেশের যে কোন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড/মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড/কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন বিষয়সমূহের প্রতিটিতে জিপি ৫.০০ পেয়ে এবং ইংরেজী ও বাংলায় মোট জিপি নূ্যনতম ৯.০০ পেয়ে উচ্চ মাধ্যমিক/আলীম/সমমানের পরীক্ষায় পাশ অথবা বিদেশী শিক্ষা বোর্ড থেকে সমমানের পরীক্ষায় কমপক্ষে সমতুল্য গ্রেড পেয়ে পাশ হতে হবে৷
সকল সঠিক আবেদনকারীর মধ্য হতে উলেস্নখিত নির্ধারিত মানের ভিত্তিতে বাছাই করে প্রম থেকে ৮৫০০তম সকল আবেদনকারীকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে দেয়া হবে৷ এই বাছাইয়ের জন্য যথাক্রমে আবেদনকারীর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ইংরেজীতে প্রাপ্ত জিপিএ, বাংলায় প্রাপ্ত জিপিএ, মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ এবং মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ (অতিরিক্ত বিষয় ব্যতীত)-কে অগ্রাধিকারের ক্রম হিসাবে বিবেচনা করা
হবে৷
[খ] GCE O লেভেল এবং GCE A লেভেল পাশ করা প্রার্থীদেরকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য GCE O লেভেল পরীক্ষায় কমপক্ষে পাঁচটি বিষয় (গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন এবং ইংরেজী সহ) এর প্রতিটিতে কমপক্ষে ই গ্রেড এবং GCE A লেভেল পরীক্ষায় গণিত, পদার্থ বিজ্ঞান ও রসায়ন এই তিন বিষয়ের প্রতিটিতে কমপক্ষে অ গ্রেড পেয়ে পাশ হতে হবে৷
নুন্যতম যোগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে GCE O লেভেল এবং GCE A লেভেল সার্টিফিকেট প্রাপ্ত সকল সঠিক আবেদনকারীকে ভর্তি পরীক্ষায়
অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হবে৷
[গ] নুন্যতম যোগ্যতা পূরণ সাপেক্ষে ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীভুক্ত সকল সঠিক আবেদনকারীকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হবে৷
“ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য আবেদনকারীদের তালিকা” বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে, ওয়েবসাইট এবং ইশিখন.কম  প্রকাশ করা হবে৷

পরীক্ষা পদ্ধতি:
পার্বত্য চট্টগ্রাম ও অন্যান্য এলাকার ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠী প্রার্থীদের জন্য ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগসমূহ ও নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মোট ৩টি এবং স্থাপত্য বিভাগে ১টি সংরক্ষিত আসনসহ সর্বমোট আসন সংখ্যা ১০০০ টি৷
>> গণিত, পদার্থ, রসায়ন এবং ইংরেজীতে প্রশ্নমানের ৫০ শতাংশ অবজেক্টিভ ধরনের হবে।
>> এ অংশের প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য একটি সঠিক উত্তরের এক-চতুর্থাংশ নাম্বার কাটা হবে। বাকি অংশের প্রশ্ন ও মূল্যায়ন প্রচলিত পদ্ধতিতে হবে।
>> সময় নির্ধারিত থাকবে ৩ ঘণ্টা। এর মধ্যে পদার্থ, রসায়ন, গণিতে ১৮০ এবং ইংরেজীতে ৬০ নম্বর বরাদ্দ থাকবে।

বিভাগসমুহ:

বিভাগ (আসন সংখ্যা)- EEE (195), CSE (120), ME (180), ChE (60), IPE (30), CE (195), MME (50), Arch (55), NAME (55), WRE (30) & URP (30)

স্থাপত্য এবং পরিকল্পনা অনুষদ
স্থাপত্য বিভাগ,
নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ,
মানবিক বিভাগ।

পুরকৌশল অনুষদ

পুরকৌশল বিভাগ,
পানি সম্পদ কৌশল বিভাগ।

তড়িৎ এবং ইলেক্ট্রনিক কৌশল অনুষদ

তড়িৎ এবং ইলেকট্রনিক কৌশল বিভাগ,
কম্পিউটার বিজ্ঞান ও কৌশল বিভাগ,
জৈব চিকিৎসা কৌশল বিভাগ।

প্রকৌশল অনুষদ

কেমিকৌশল বিভাগ,
বস্তু ও ধাতব কৌশল বিভাগ,
রসায়ন বিভাগ,
গণিত বিভাগ,
পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগ,
পেট্রোলিয়াম ও খনিজ সম্পদ কৌশল বিভাগ।

যন্ত্র কৌশল অনুষদ

যন্ত্রকৌশল বিভাগ,
নৌযান ও নৌযন্ত্র কৌশল বিভাগ,
শিল্প ও উৎপাদন কৌশল বিভাগ।

   
   

0 responses on "বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (BUET) ভর্তি পরীক্ষায় কোন বিষয়ে কতটি সিট/আসন সংখ্যা, সময় সুচি ও মানবন্টন দেখে নিন এখান থেকে সকল ইউনিট"

Leave a Message

Your email address will not be published.